05, Dec-2020 || 09:19 pm
Home জেলা শশ্মান কালীকে কেন ঘরের মেয়ে বলা হয়

শশ্মান কালীকে কেন ঘরের মেয়ে বলা হয়

সঞ্চিতা সিনহা,বাঁকুড়া(১৪ নভেম্বর ২০২০ ) :হিন্দু পুরাণ মতে, মা দুর্গার সহস্র রূপের মধ্যে একটি রূপ হল মা কালী। সংস্কৃত ভাষানুসারে কালী নামটি এসেছে ‘কাল’ শব্দ থেকে। যার অর্থ হলো ‘ঘোর বর্ণ’ বা ‘কৃষ্ণবর্ণ’। আর এই কালো রূপের অধিষ্ঠাত্রী দেবী হলো মা কালী। মা কালীর এই রূপ কে আমরা যতই ভয় পাই না কেন তার সামনে গেলে আমাদের মাথা ঠিকই নত হয়ে যায়। তা সে যতই বিদ্বান ব্যক্তিই হোক না কেন কৃষ্ণ কালীর রূপ কে সকলে পূজা করে থাকে মাতৃরূপে। কিন্তু এই উগ্র দেবী কিভাবে সকলের ‘মা’ হয়ে উঠলেন তার পিছনে আছে এক দীর্ঘ ইতিহাস।
সাধক কৃষ্ণানন্দ আগমবাগীশ কালীকে যে ভাবে দেখেছিলেন সেই মা কালী কেই আরও কাছের করে ঘরের মেয়ে করে তুলেছিলেন রামপ্রসাদ সেন তাঁর ভক্তিগীতের মাধ্যমে । সেই সময় থেকেই মা কালী হয়ে উঠলেন আমাদের সকলের আদরের শ্যামা মা। সেই সময় ভারতবর্ষে চলছিল এক ভয়াবহ পরিস্থিতি। একদিকে ১৭৩৯ সালে মহাপ্লাবন অন‍্যদিকে ১৭৪২ এবং ১৭৫২ সালে বর্গী হানা, ১৭৫৭ সালে পলাশির যুদ্ধ সামলে উঠতে না উঠতে ১৭৬৯ সালে হাজির হয় মন্বন্তর। মানুষ হয়ে যায় দিশেহারা। এই পরিস্থিতিতে তাদের মধ্যে শক্তি ও ভরসা জোগায় রামপ্রসাদের ভক্তিগীতি। আপামর জনসাধারণ এই শক্তিরূপী কালী ও ভক্তিগীতিকে আঁকড়ে ধরে আবার ভালো থাকার রসদ খুঁজে পায়। রামপ্রসাদের মা কালীকে আরও আপন করে ঘরোয়া মেয়ে করে তুলেন শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংস দেব। আর শক্তিরূপী শশ্মান কালী এ ভাবেই ধীরে ধীরে হয়ে উঠেছে ঘরোয়া ও সকল বাঙালির কাছে হয়ে উঠে আপন মা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বিজেপির বাইক রেলী

বাপ্পা রায়, পুরুলিয়া, ০৪ ডিসেম্বর:- ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার পক্ষ থেকে শুক্রবার পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বাইক রেলী।এদিন পুরুলিয়া জেলার...

জীবন যুদ্ধ শেষ করে পঞ্চভূতে বিলীন হলেন বাবুরাম মান্ডী

মলয় সিংহ,বাঁকুড়া : না, আর শেষ রক্ষা হলো না জীবন যুদ্ধে হার মানতেই হলো গঙ্গাজলঘাঁটি থানার কতব্যরত সাব-ইন্সপেক্টর বাবুরাম মান্ডীকে । জীবন...

পরপর দু দিন হাসনাবাদে দুই নাবালিকার বিয়ে রুখল প্রশাসন

সৌরভ দাশ,হাসনাবাদ: পরিবারের অবস্থা স্বচ্ছল নয়,ফলত পরিবারের পক্ষ থেকে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার আয়োজন হয়েছিলো দশম শ্রেণীর পাঠরতা এক নাবালিকার।তবে বিয়ে নয় পড়াশুনাতেই...

সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন দঃ ২৪ পরগনার জেলাশাসক : রামকৃষ্ণ সাহা

হীরক মুখোপাধ্যায় (৪ ডিসেম্বর '২০):- টানা ১৫ বছর অস্থায়ী কর্মী রূপে কাজ করার পরেও সরকার স্থায়ী কর্মচারী রূপে স্বীকৃতি না পাওয়ায় আজ...