05, Dec-2020 || 09:40 pm
Home জেলা ভূতচতুর্দশীতে চৌদ্দ শাক ও চৌদ্দ প্রদীপ জ্বালানো হয় কেন:-

ভূতচতুর্দশীতে চৌদ্দ শাক ও চৌদ্দ প্রদীপ জ্বালানো হয় কেন:-

অর্পিতা সিনহা, বাঁকুড়া (১৩নভেম্বর,২০২০):- হিন্দু শাস্ত্র মতে কালীপূজার আগের দিন ভূত চতুদর্শী পালন করা হয়ে থাকে । হিন্দুরা বিশ্বাস করে মৃত্যুর পর মানুষ পঞ্চভূতে বিলীন হয়। ক্ষীতি, অপঃ, যশ, মরুৎ, ব্যোম এই পাঁচটি উপাদানের মধ্যেই মিশে থাকেন পূর্বপুরুষরা। ভূত চতুদর্শীর দিন তাঁরা র্মত‍্যে নেমে আসেন। তাই এই দিন চৌদ্দ রকমের শাক খেয়ে এবং চৌদ্দটি প্রদীপ জ্বালিয়ে পরলোকগত চৌদ্দ পূর্ব পুরুষদের স্মরণ করা হয়ে থাকে। কথিত আছে অশুভ শক্তির বিনাশ করতে বা অতৃপ্ত আত্মা দের শান্ত করতে এই প্রদীপ প্রজ্জ্বলন। আবার কেউ কেউ বলেন এই ভূতচতুর্দশীর দিন পূর্বপুরুষদের আর্শীবাদ পাওয়ার জন্য প্রদীপ জ্বালানোর রীতি আছে। এছাড়াও এইদিন বাঙালি বাড়িতে চৌদ্দ রকম শাক খাওয়ার নিয়মও প্রচলন আছে। এই দিনে চৌদ্দ শাকের মধ্যে রাখতে হয় ওল, বেতো, সরষে, পুঁই, শুশনি, মেথি, হিলঞ্চ, পলতা, শৌলফ, নিম,গুলঞ্চ, শুষণী, লাউ , লাল শাক ইত্যাদি।
তবে এই চৌদ্দ শাক খাওয়ার ও চৌদ্দ প্রদীপ জ্বালানোর বৈজ্ঞানিক ভিত্তি ও রয়েছে। এই সময় আবহাওয়ার পরিবর্তন হয়, উত্তরের ঠাণ্ডা হাওয়া বইতে শুরু করে। শাক শরীরের রোগ সংক্রমণ রোধ করার ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।তাই বলা হয় শাক খেতে।আর ঘোর অমাবস‍্যাতে ভয় দূর করতে প্রদীপ প্রজ্বলন। আয়ুর্বেদাচার্য ধন্বন্তরি জন্মেছিলেন ত্রয়োদশীর শেষ লগ্নে অর্থাৎ চতুর্দশীর শুরুতে। সেই মহান আয়ুর্বেদাচার্য ধন্বন্তরিকে স্মরণ করে চৌদ্দটি পুষ্টিগুণ যুক্ত শাক খাওয়ার রীতির প্রচলন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বিজেপির বাইক রেলী

বাপ্পা রায়, পুরুলিয়া, ০৪ ডিসেম্বর:- ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার পক্ষ থেকে শুক্রবার পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বাইক রেলী।এদিন পুরুলিয়া জেলার...

জীবন যুদ্ধ শেষ করে পঞ্চভূতে বিলীন হলেন বাবুরাম মান্ডী

মলয় সিংহ,বাঁকুড়া : না, আর শেষ রক্ষা হলো না জীবন যুদ্ধে হার মানতেই হলো গঙ্গাজলঘাঁটি থানার কতব্যরত সাব-ইন্সপেক্টর বাবুরাম মান্ডীকে । জীবন...

পরপর দু দিন হাসনাবাদে দুই নাবালিকার বিয়ে রুখল প্রশাসন

সৌরভ দাশ,হাসনাবাদ: পরিবারের অবস্থা স্বচ্ছল নয়,ফলত পরিবারের পক্ষ থেকে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার আয়োজন হয়েছিলো দশম শ্রেণীর পাঠরতা এক নাবালিকার।তবে বিয়ে নয় পড়াশুনাতেই...

সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন দঃ ২৪ পরগনার জেলাশাসক : রামকৃষ্ণ সাহা

হীরক মুখোপাধ্যায় (৪ ডিসেম্বর '২০):- টানা ১৫ বছর অস্থায়ী কর্মী রূপে কাজ করার পরেও সরকার স্থায়ী কর্মচারী রূপে স্বীকৃতি না পাওয়ায় আজ...