20, Oct-2020 || 11:39 am
Home কলকাতা সংবাদ শিরোনামে আসতেই নিজেদের দোষ স্বীকার করে রোগীর পরিবারের হাতে ৮,৮০০ টাকা...

সংবাদ শিরোনামে আসতেই নিজেদের দোষ স্বীকার করে রোগীর পরিবারের হাতে ৮,৮০০ টাকা ফিরিয়ে দিল নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হসপিটাল

হীরক মুখোপাধ্যায় (১০ সেপ্টেম্বর ‘২০):– সংবাদ শিরোনামে আসার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই আজ নিজেদের দোষ স্বীকার করে দুই পর্যায়ে (৬৮০০ টাকা + ২০০০ টাকা) ৮, ৮০০ টাকা রোগীর পরিবারের হাতে ফেরত দিল ‘নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হসপিটাল’-এর বারাসাত শাখা।
প্রসঙ্গতঃ উল্লেখ্য, গত ২৭ অগস্ট শিশুতোষ ঘোষ-এর পরিবারের কাছ থেকে বিভিন্ন খাতে মোট ১৬,৬১৫ টাকা আদায় করেছিল এই হসপিটাল।

গত ২৭ অগস্ট বুকে পেসমেকার বসাবার কারণে বর্ষীয়ান শিশুতোষ ঘোষ (৭৮) কে ‘নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতাল’-এর বারাসাত শাখায় ভর্তি করা হয়েছিল।

রোগীর পরিবারের তরফ থেকে সঞ্জয়কুমার ঘোষ গত ৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে হসপিটালের মেডিক্যাল সুপারিনটেন্ডন্ট-এর কাছে এক লিখিত অভিযোগপত্র জমা দিয়ে জানান, ‘হসপিটালে রোগী ভর্তি থাকাকালীন একদিকে যেমন রোগীকে ভিজে কম্বল জড়িয়ে শুইয়ে রাখা হয়েছিল, তেমনই জনৈক ওয়ার্ড বয় রোগীর গালে সপাটে এক মারেন।’ প্রায় মৃত্যুপথযাত্রী রোগীকে চড় মারার দৃশ্য রোগীর পরিবারের চোখে পড়ে যেতেই রোগীর পরিবার তড়িঘড়ি রোগীকে হাসপাতাল থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।

রোগীর পরিবার থেকে হসপিটালে লিখিত অভিযোগ করে জানানো হয়েছিল, ‘হসপিটাল কর্তৃপক্ষ রোগীর শরীরে একটা চ্যানেলও বসাতে পারেনি, মুখ দিয়ে একটাও ওষুধ খাওয়াতে পারেনি, রোগী আইসিইউ-তে দুই তিন ঘণ্টার বেশি থাকেননি তারপরেও হসপিটাল কর্তৃপক্ষ কীভাবে ওষুধের জন্য বিল ও আইসিইউ-এর জন্য একদিনের পুরো খরচ নিল !’

হসপিটালের প্রশাসক শুভেন্দু প্রকাশ-এর সাথে কথা বলে রোগীর পরিবার থেকে অভিযোগপত্র জমা দেওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে এলো হসপিটাল কর্তৃপক্ষ। অভিযোগ নিরসনে প্রথমে আইসিইউ শয্যা ভাড়া বাবদ ৬,৮০০ টাকা ও পরে ওষুধ বাবদ নেওয়া আরো ২ হাজার টাকা অর্থাৎ মোট ৮,৮০০ টাকা রোগীর পরিবারকে ফেরত দিল ‘নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হসপিটাল’-এর বারাসাত শাখা।

যদিও অভিযোগ কর্তার দাবী, “আমার মূল অভিযোগ ছিল, যিনি আমার বাবাকে মেরেছেন তাঁকে শাস্তি দেওয়া হোক। কিন্তু হসপিটাল কর্তৃপক্ষ এখনো সেই বিষয়ে কোনো সদর্থক ভূমিকা নেয়নি। তবে ওষুধ ও আইসিইউ বেড ভাড়া সম্পর্কিত অন্য দুই অভিযোগের নিরসন হেতু আমার হাতে দুই পর্যায়ে মোট ৮,৮০০ টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।”

আজ ‘নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হসপিটাল’-এর বারাসাত শাখার বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে সঞ্জয়কুমার ঘোষ জানিয়েছেন, “নাম ও খরচের অনুপাতে এখানে উন্নতমানের কোনো চিকিৎসা পরিষেবাই পাওয়া যায় না। আমার বাবাকে এখানে ভর্তি নেওয়ার পর এখানকার চিকিৎসকেরা একদিকে যেমন বাবার হাতের শিরা বা ধমনী খুঁজে না পেয়ে একটা চ্যানেল বসাতে পারেননি, ঠিক তেমনি বাবার শল্য চিকিৎসা করা সম্ভব নয় বলে নিদান দিলেও পরে অন্য এক অখ্যাত সেবাকেন্দ্র থেকে সাফল্যের সঙ্গেই বাবার শল্য চিকিৎসা সম্ভব হয়েছিল।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

তৃণমূল কংগ্রেস মহিলা শাখার পাশাপাশি শুরু করলো বঙ্গজননী সংগঠন

প্রদীপ মজুমদার, নদীয়াঃ তৃণমূলের মহিলা শাখার ওপর আর ভরসা না থাকায় তৃণমূল কংগ্রেস মহিলা শাখার পাশাপাশি শুরু করলো বঙ্গজননী সংগঠন।এই সংগঠনের কাজ...

বাঘমুন্ডি ব্লক কংগ্রেসের ডাকে প্রতিবাদ মিছিল

বাপ্পা রায়, বাঘমুন্ডি, পুরুলিয়া, ১৮ অক্টোবর :- রবিবার পুরুলিয়া জেলার বাঘমুন্ডি ব্লক কংগ্রেসের ডাকে রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন দুর্নীতির দাবি...

নদীয়ার বাদকুল্লার সুরভী স্থানে ২৬৮ নম্বর বুথ তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি এক স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির

প্রদীপ মজুমদার, নদীয়াঃ রক্তদান জীবন দান আর রক্ত দিয়ে প্রাণ বাঁচান। বর্তমান করোনা আবহে রাজ্যে রক্ত সংকট দেখা গেছে। রক্তের প্রয়োজন থাকলেও...

আজ তাঁদের পরিবারের প্রয়োজন ফুরিয়েছে তাই আজ তাঁদের ঠিকানা বৃদ্ধাশ্রম

প্রদীপ মজুমদার,নদীয়া: একসময় ওদেরও ছিল ভরা সংসার, ছিল ছেলে, মেয়ে, পুত্রবধূ ,জামাই,নাতি নাতনি। ভোর থেকে রাত পর্যন্ত ওরা শুনতে পেতেন ছেলেমেয়েদের বাবা,মা...