29, Oct-2020 || 01:07 pm
Home বিনোদন পেনাল্টি ২০২০

পেনাল্টি ২০২০

ঋদ্ধি ভট্টাচার্য, কোলকাতা:- মণিপুরের একটি ছোট্ট পাহাড়ি গ্রামের ছেলে লুকরাম। তার একমাত্র স্বপ্ন দেশের হয় এ ফুটবল খেলা। সেই স্বপ্ন নিয়ে সে এসে ভর্তি হয় লখনউ এর এক বিখ্যাত কলেজ এ। কারণ সেই কলেজ এর ফুটবল টিম এ একবার ঢুকতে পারলে নাকি দেশের হয় এ সুযোগ পাওয়াটা অনেক সোজা। তো কলেজ এ গিয়ে লুকরাম এর বন্ধুত্ব হয় ওর রুমমেট ঈশ্বর এর সাথ এ। লুকরাম কলেজ এ ঢুকে জানতে পারে যে কলেজ এর ফুটবল টিম এর রেজিস্ট্রেশন এর ডেট ২ সপ্তাহ আগেই শেষ হয় এ গেছে। কিন্তু লুকরাম সময় মত কলেজ এ এসে পৌঁছতে পারেনি কারণ সেই সময় মনিপুর এ ভূমিকম্প হয় এ সমস্ত রকম যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ ছিল। এই কথাটা ও ওর বন্ধু ঈশ্বরকে বলায় ও টিম এর কোচ পার্থ স্যার এর সাথেও কথা বলে ওর ট্রেনিং এর ব্যাবস্থা করে দেয়। ওই টিম এর ই যিনি প্রধান মাথা অর্থাৎ বিক্রম সিং(কে কে মেনন) একদিন এসে বলেন যে একটি খুব বড়ো কর্পোরেট টুর্নামেন্ট হতে চলেছে সেটিতে ভালো খেলতে পারলে খুব সহজে ইন্ডিয়া টিম এ চান্স পাওয়া যাবে এবং সেই মত প্রাকটিস ও শুরু হয়। এদিকে লুকরাম পূজা বলে এক সহপাঠীর প্রেমে পরে তাৎক্ষণিক খেলা থেকে মনোযোগ হারিয়ে ফেলে এবং একটি প্রাকটিস ম্যাচ এ এত বাজে খেলে যে কোচ তাকে বাধ্য হয় তুলে নেয়। ওর জন্য ম্যাচ হারার কারণে ওর টিম এর বাকি খেলোয়াড় রা ওকে চিংকি বলে অপমান করে এবং ওর হাত পা ভেঙে দেওয়ার ও ভয় দেখায়। এদিকে বিক্রম সিং ও পরিষ্কার জানিয়ে দেন যে উনি লুকরাম কে ওর টিম এ চান্স দেবেন না টা সে যতই ভালো খেলুক না কেনো। কারণ সে একজন বহিরাগত এবং এই টিম এ উনি ইউপি ছাড়া আর অন্য কোনো রাজ্যের খেলোয়াড় ঢোকাবেন না। তো লুকরাম কি আবার টিম এ চান্স পাবে এবং সে কি স্বপ্ন পূরণ করতে পারবে সেটাই এই সিনেমার মূল গল্প।

এবার আসা যাক সিনেমার অভিনয় প্রসঙ্গে। স্পেশাল অপস এর পরে অনেকদিন বাদে কে কে মেনন কে দেখে বেশ ভালো লাগে। ভদ্রলোক কে যে চরিত্রই দেওয়া হয় সেটি প্রচন্ড ভালো ফুটিয়ে তোলেন পর্দায়। আর মুখ্য চরিত্রে লুকরাম স্মিল নিজের নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। যতদূর মনে হয় ছেলেটির এটি প্রথম ছবি। সেই হিসেবে ভালই করেছেন। আর ওনার বন্ধু ঈশ্বর সিং এর ভূমিকায় যথাযথ। বাকিরাও নিজ নিজ চরিত্রে ঠিকঠাক।

পরিচালক শুভম সিং এর প্রথম ছবি এটি। এর আগে উনি ভাগ মিলখা ভাগ, সন অফ সরদার এবং মেরে ব্রাদার কি দুলহান এ সহকারী পরিচালক ছিলেন। আজকাল ভারতীয় ফুটবল এ নর্থ – ইস্ট এর খেলোয়াড় দের ই দাপাদাপি বেশি। তার সত্ত্বেও মনিপুর থেকে একটা ছেলে কে সামান্য ফুটবল খেলার জন্য কত স্ট্রাগল করতে হয় (না এটা অনন্যা পান্ডের স্ট্রাগল এর কথা বলছিনা), বিভিন্ন রকম রেসিস্ট কমেন্ট এর সম্মুখীন হতে হয় সেটাই উনি এই সিনেমায় তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। তবে এন্ডিংটা আর একটু যত্ন নিয়ে করলে ভালো করতেন বলে আমার মনে হয়, বড্ড তাড়াহুড়ো করে ফেলেছেন। বাদ বাকি খেলার দৃশ্যগুলো, এবং একটিই গান যেটা সিনেমাতে ব্যবহার করা হয়েছে বেশ ভালো।

সব মিলিয়ে বলা যায় বিগত কোয়েক মাস ধরে ক্রমাগত ক্রাইম থ্রিলার দেখার মাঝে এই স্পোর্টস ড্রামাটি অনেকটা একঝলক টাটকা বাতাসের মত। হাতে সময় থাকলে অবশ্যই দেখুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল-এর জন্মতিথি থেকে আহমেদাবাদ ও কেভাডিয়া-র মধ্যে চালু হচ্ছে সিপ্লেন পরিষেবা

হীরক মুখোপাধ্যায় (২৮ অক্টোবর '২০):- আগামী ৩১ অক্টোবর সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল-এর জন্মতিথিকে স্মরণে রেখে আহমেদাবাদ-এর 'সবরমতী নদী' থেকে গুজরাতে অবস্থিত কেভাডিয়া-র 'স্ট্যাচু...

প্রতিবাদ দিবস পালন করতে গিয়ে তৃণমূলী দুষ্কৃতীদের আক্রমণের শিকার ভারতীয় মজদুর সংঘ-র প্রদেশ নেতৃত্ব

হীরক মুখোপাধ্যায় (২৮ অক্টোবর '২০):- কেন্দ্রীয় সরকারের শ্রমিক বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে আজ পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রাম অঞ্চলে তৃণমূল কংগ্রেস...

অবস্থান বিক্ষোভ শ্রমিকদের

মলয় সিংহ, বাঁকুড়া :একাধিক দাবি দাওয়া নিয়ে বাঁকুড়ার বড়জোড়া ব্লকের হাটআসুড়িয়ায় কালিমাতা ভেপার প্রাইভেট লিমিটেড নামে রেলের যন্ত্রাংশ তৈরির কারখানার সামনে অবস্থান...

নারীর ক্ষমতায়ন:

অর্পিতা সিনহা,বাঁকুড়া(২৭অক্টোবর): বিংশ শতাব্দীর বিজ্ঞানের জয়যাত্রা পেরিয়ে একবিংশ শতাব্দীতে জ্ঞান বিজ্ঞানের আলোকে আজ আমরা অনেকটাই পরিপূর্ণতা লাভ করেছি। সভ্যতার যে অগ্রগতি ও...