05, Dec-2020 || 09:39 pm
Home বিনোদন লাপাছাপি (লুকোচুরি)

লাপাছাপি (লুকোচুরি)

ঋদ্ধি ভট্টাচার্য, কোলকাতা:-আপনার কি বলিউডের অখাদ্য সব ভূতের সিনেমা দেখে দেখে ভূত সমাজের ওপর থেকে বিশ্বাস উঠে গেছে ? তাহলে এই লেখা একেবারেই আপনার জন্য।
ভূতের সিনেমার সম্পদ বলতে কি শুধু সেই পুরনো বাড়ির মরচে ধরা দরজার আওয়াজ ? সেই রাত হলেই ঘরের লাইটের লো ভোল্টেজ ? চারিদিকে শুধু অকারণ চিৎকার করে দর্শককে ভয় পাওয়ানোর ব্যর্থ প্রচেষ্টা, আর শেষে ভূতকে মন্ত্র বলে ঝাঁটা পিটিয়ে তাড়ানো। এই সব দেখে যদি আপনি বোর হয়ে গিয়ে থাকেন, তাহলে আপনার ভূতের সিনেমার ওপর থেকে হারিয়ে যাওয়া ভরসা ফিরিয়ে নিয়ে আসতে অব্যর্থ ওষুধ হতে পারে একটি মারাঠি মুভি, যার নাম ‘লাপাছাপি’। বাংলায় যার মানে হয় ‘লুকোচুরি’।
গল্পঃ গল্প শুরু হচ্ছে তুষার ও তার ৮ মাসের গর্ভবতী স্ত্রী নেহাকে নিয়ে। শহরে অতিরিক্ত ধার,দেনা করার ফলে তুষারের পক্ষে শহরে থাকা দুষ্কর হয়ে পরে। নিজের ও তার স্ত্রী নেহার প্রাণ বাঁচানোর জন্যে সে সবকিছু ছেড়ে সে ভাওরাও নামে তার এক পরিচিত ব্যক্তির গ্রামে আশ্রয় নেয়। এই পুরো গ্রামটি আখ ক্ষেত দিয়ে ঘেরা এবং আশপাশের জনবসতি প্রায় নেই বললেই চলে। গ্রামের বাড়িতে ভাওরাওয়ের স্ত্রী তুলসা বাঈ তাদের থাকার ব্যবস্থা করে এবং তাদেরকে নিজের ছেলে মেয়ের মতোই দেখাশোনা করতে শুরু করে। কিন্তু এই গল্পে গতি আসে তখন যখন নেহা একদিন আচমকাই কিছু আওয়াজ শুনতে পেতে শুরু করে এবং ৩টে বাচ্চা হাতে একটা রেডিও নিয়ে প্রায়ই তার কাছে এসে লুকোচুরি খেলার জন্য জেদ করতে থাকে। শুরু শুরুতে ব্যাপারটা স্বাভাবিক লাগলেও ধীরে ধীরে নেহা বুঝতে পারে যে বাচ্চাগুলো তার সাথে রোজ খেলতে আসছে আসলে তাদের কোন অস্তিত্ব নেই এবং এটা বুঝতে পারার পর থেকেই নেহা ধীরে ধীরে ইলিউশনের শিকার হয়ে বর্তমান ও কাল্পনিক দুনিয়ায় পার্থক্যটা ভুলতে শুরু করে। এবারে নেহা যখন তার সাথে ঘটে চলা ঘটনাগুলির কারণ খুঁজতে চায় সে জানতে পারে এই গ্রামে এর আগে একের পর এক গর্ভবতী মহিলারা নিজের পেট কেটে আত্মহত্যা করেছে আর এই সব আত্মহত্যার পিছনে আছে এক ডাইনি যে এই গর্ভবতী মহিলাদের আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছে।
নেহা বুঝতে পারে সে এক বড়ো গোলকধাঁধাতে ফেসে গিয়েছে এবং এসবের মধ্যে যেভাবেই হোক তাকে তার সন্তানকে বাঁচাতে হবে। তো এই সকল ঘটনার মধ্যে নেহা কি বাঁচাতে পারবে তার গর্ভের শিশু সন্তানটিকে? আসলে সত্যি কি কোনো ডাইনি আছে? না এর পিছনে আছে কোন বড়ো ষড়যন্ত্র ? আদৌ কি এই ঘটনা গুলি সত্যি? নাকি এটাও আগের মতই নেহার কাল্পনিক দুনিয়ার তৈরী কোনো ইলিউশন ? এই সব উত্তর পেতে হলে একবার দেখতেই হবে জি-ফাইভের হরর মুভি লাপাছাপি।

ভালো /খারাপঃ বলিউডের বিগ বাজেটের হরর মুভির হাস্যকর পরিণতি হতে আমরা অনেকবার দেখেছি। এর পিছনে মূল কারণ সেই একই মিনিংলেস স্টোরি। ইতিমধ্যেই যে বিষয়ে অনেকগুলো কথা বলে দিয়েছি। কিন্তু লাপাছাপি সিনেমার স্ট্রং পয়েন্ট বলতে গেলে এর গল্প এবং
অসাধারণ স্ক্রিন-প্লে যা সিনেমার শেষ অবধি সাসপেন্সটা ধরে রাখে। অভিনয়ের কথা বলতে হলে বলবো যে নেহা অর্থাৎ পূজা সায়ান্ত ও তুলসা বাঈ অর্থাৎ উসা নায়েক এই দুজনের অভিনয় যথেষ্ট নজর কাড়বে।
খারাপ বলতে মুভিতে তেমন কিছু নেই বললেই চলে, তাই সেটা নিয়ে বেশি শব্দ খরচ করছি না। এছাড়াও মুভিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাসেজ এর দ্বারা সমাজের ছোট মানসিকতার গালে সপাটে চড় মারতে চাওয়া হয়েছে।
পরিশেষে কম বাজেটে সত্যি ঘটনার ওপর এরকম একটা সিনেমা বানানোর জন্য পরিচালক বিশাল ফুরিয়াকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর এই সিনেমাটার বলিউড রিমেক করা হচ্ছে, যেখানে মূল চরিত্রে থাকতে চলেছেন নুসরত ভারুচা।
সিনেমাটা জি ফাইভে আছে, যদি রিভিউটি পড়ে ভালো লেগে থাকে তবে একবার মুভিটি দেখতেই পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বিজেপির বাইক রেলী

বাপ্পা রায়, পুরুলিয়া, ০৪ ডিসেম্বর:- ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার পক্ষ থেকে শুক্রবার পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বাইক রেলী।এদিন পুরুলিয়া জেলার...

জীবন যুদ্ধ শেষ করে পঞ্চভূতে বিলীন হলেন বাবুরাম মান্ডী

মলয় সিংহ,বাঁকুড়া : না, আর শেষ রক্ষা হলো না জীবন যুদ্ধে হার মানতেই হলো গঙ্গাজলঘাঁটি থানার কতব্যরত সাব-ইন্সপেক্টর বাবুরাম মান্ডীকে । জীবন...

পরপর দু দিন হাসনাবাদে দুই নাবালিকার বিয়ে রুখল প্রশাসন

সৌরভ দাশ,হাসনাবাদ: পরিবারের অবস্থা স্বচ্ছল নয়,ফলত পরিবারের পক্ষ থেকে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার আয়োজন হয়েছিলো দশম শ্রেণীর পাঠরতা এক নাবালিকার।তবে বিয়ে নয় পড়াশুনাতেই...

সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন দঃ ২৪ পরগনার জেলাশাসক : রামকৃষ্ণ সাহা

হীরক মুখোপাধ্যায় (৪ ডিসেম্বর '২০):- টানা ১৫ বছর অস্থায়ী কর্মী রূপে কাজ করার পরেও সরকার স্থায়ী কর্মচারী রূপে স্বীকৃতি না পাওয়ায় আজ...