05, Dec-2020 || 08:17 pm
Home বিনোদন বুলবুল

বুলবুল

রিতা মিস্ত্রি,কোলকাতা:১৮৮১ সালের পশ্চিম বাংলার এক জমিদার বাড়ির অন্তর্নিহিত কেচ্ছা কেলেঙ্কারি আর সঙ্গে একটু পেত্নীর ককটেল। এই হলো সংক্ষেপে সম্প্রতি মুক্তি প্রাপ্ত বুলবুল এর গল্প। ইদানিং কালে ভূতের সিনেমা বা হরর ফিল্ম এর নামে হিন্দিতে যা সব আসছে সব এতোটাই নিম্ন শ্রেণীর যে ভূত জিনিসটার উপর থেকেই ভক্তি শ্রদ্ধা উঠে গেছিলো। কিন্তু প্রযোজক অনুশ্কা শর্মা নামটা দেখে একটা আশার আলো দেখেছিলাম। বিশেষ করে পাতাললোক দেখার পর সেই প্রত্যাশার পারদ অনেকটা বেড়ে গেছিলো। কিন্তু ভূত বা ভয় দেখানোর ক্ষেত্রে অনুশ্কা শর্মাও ব্যর্থ হলেন।

গল্পটা মোটামুটি এই রকম। ১৮৮১ সালের পশ্চিম বাংলার কোনো এক জমিদার বাড়ির ৩ ছেলে। এর মধ্যে মেজো ছেলে পাগল এবং বিবাহিত। ওনার স্ত্রী এর ভূমিকায় পাওলি দাম। আর বড়ো ও মেজো এই দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাহুল বোস। তো রাহুল বোস একদিন একটি বাল্য বিবাহ করে আনলেন একটি ১০-১১ বছরের মেয়েকে । কিন্তু বাড়িতে ওই সময় সমবয়সি দেওর থাকায় ওর সাথেই বাচ্চা টির বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে এবং সে মনে মনে ওর দেওর কেই স্বামী বলে মানে। তারা একসাথে খেলা করে ভূত পেত্নীর গল্প শোনে, সব কাজই একসাথে করে। অন্যদিকে মেজো ভাই পাগল হওয়ায় মেজো বউ তার ভাসুর এর প্রতি আসক্ত। তো এইভাবেই চলতে চলতে ওরা সবাই একদিন বড়ো হয় এ ওঠে। বড়ো ভাই জানতে পারে যে তার বউ তার ছোট ভাই কে ভালোবাসে, এ কথা জানতে পারে ও ভাইকে ওকালতি পড়তে লন্ডন পাঠিয়ে দেয়। এর প্রায় ৫ বছর পরে ছোট ভাই(অবিনাশ তিওয়ারি) লন্ডন থেকে দেশে ফিরে জানতে পারে যে তার মেজো ভাই পেত্নীর হাতে মারা গেছে এবং বড়ো ভাই দেশত্যাগী হয়েছে। এর কিছুদিন পরেই আরো ২টি খুন হয় এবং সবাই বলে এর পেছনে ওই পেত্নীর হাত আছে। কিন্তু ছোট ভাই এর সন্দেহ গিয়ে পড়ে গ্রামের এক ডাক্তার সুদীপ(পরমব্রত) এর উপরে কারণ সে সন্দেহ করে সুদীপ এর সাথ এ তার বড়ো বৌদির কোনো একটা সম্পর্ক আছে। এবার এই খুন গুলোর পেছনে কে সত্যিই কোনো পেত্নী না কোনো মানুষ আছে, আর পেত্নী থাকলে এলোই বা কোথা থেকে সেগুলো বললে স্পইলার হয় এ যাবে।

এবার আসি অভিনয় প্রসঙ্গে। রাহুল বোস কে ব্যবহারই করা হয়নি এখানে। ওনার থাকা না থাকা এখানে সমান। বাকি ভূমিকা গুলোতে পাওলি দাম আর পরমব্রত ঠিকঠাক। ছোট ছেলে সত্যর ভূমিকায় অবিনাশ তিওয়ারি বেশ সাবলীল। আপনারা একে ইমতিয়াজ আলীর লাইলা মজনু সিনেমাটিতে দেখে থাকবেন। তবে এই সিনেমার মূল আকর্ষণ কেন্দ্রীয় চরিত্রটি। বুলবুল নাম ভূমিকায় অভিনয় করা তৃপ্তি দিমরী। বিশেষত ওনার জন্যই এই ১ ঘণ্টা ৩৪ মিনিটের অত্যাচারটি সহ্য করা যায়।

বাকি সিনেমাতে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক যথেষ্ট ভালো, ভিএফক্স এর কাজ খুবই খারাপ(কথায় কথায় লাল ব্যাকগ্রাউন্ড করে দিলেই যে ভূত আসে সেটা জানা ছিল না) এবং পাওলি দাম এর মুখে কলঙ্কিনী রাধা গানটি শুনতে বেশ ভালই লাগে। সবশেষে বলি নেরফ্লিকস এর অবিলম্বে হিন্দি কন্টেন্ট নিয়ে চিন্তা ভাবনা করা উচিত। স্যাক্রড গেমস এর পরে যা বেরিয়েছে সবই খুব নিম্ন মানের। বিশেষ করে প্রাইম ভিডিও বা ইদানিং কালের ভুট বা সনি লিভ এই অ্যাপ গুলোতে যা কন্টেন্ট বেরোচ্ছে তাতে ওরা যে হিন্দি কন্টেন্ট নির্বাচনের ক্ষেত্রে অনেকগুণ পিছিয়ে সেকথা বলার অপেক্ষা রাখেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বিজেপির বাইক রেলী

বাপ্পা রায়, পুরুলিয়া, ০৪ ডিসেম্বর:- ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার পক্ষ থেকে শুক্রবার পুরুলিয়া জেলার বিভিন্ন বিধানসভায় অনুষ্ঠিত হলো বাইক রেলী।এদিন পুরুলিয়া জেলার...

জীবন যুদ্ধ শেষ করে পঞ্চভূতে বিলীন হলেন বাবুরাম মান্ডী

মলয় সিংহ,বাঁকুড়া : না, আর শেষ রক্ষা হলো না জীবন যুদ্ধে হার মানতেই হলো গঙ্গাজলঘাঁটি থানার কতব্যরত সাব-ইন্সপেক্টর বাবুরাম মান্ডীকে । জীবন...

পরপর দু দিন হাসনাবাদে দুই নাবালিকার বিয়ে রুখল প্রশাসন

সৌরভ দাশ,হাসনাবাদ: পরিবারের অবস্থা স্বচ্ছল নয়,ফলত পরিবারের পক্ষ থেকে তাড়াতাড়ি বিয়ে দেওয়ার আয়োজন হয়েছিলো দশম শ্রেণীর পাঠরতা এক নাবালিকার।তবে বিয়ে নয় পড়াশুনাতেই...

সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন দঃ ২৪ পরগনার জেলাশাসক : রামকৃষ্ণ সাহা

হীরক মুখোপাধ্যায় (৪ ডিসেম্বর '২০):- টানা ১৫ বছর অস্থায়ী কর্মী রূপে কাজ করার পরেও সরকার স্থায়ী কর্মচারী রূপে স্বীকৃতি না পাওয়ায় আজ...