05, Jun-2020 || 11:41 am
Home কলকাতা বাংলাদেশ থেকে ফিরতে চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ভিডিও বার্তায় কাতর আবেদন করলেন পশ্চিমবঙ্গের...

বাংলাদেশ থেকে ফিরতে চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ভিডিও বার্তায় কাতর আবেদন করলেন পশ্চিমবঙ্গের শ্রমিকরা

স্নেহাশীষ মুখার্জি, নদীয়া, ১৪ মে: বাংলাদেশে আটকে পড়েছেন পশ্চিমবঙ্গের তিনশো শ্রমিক। তারা ফিরতে পারছেন না। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে হাতজোড় করে আবেদন করলেন রাজ্যে ফিরিয়ে আনার জন্য।
পশ্চিমবঙ্গের মালদা, মুর্শিদাবাদ, মেদিনীপুর এবং নদীয়া থেকে ৩০০ জন পরিযায়ী শ্রমিক বাংলাদেশের রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজ করতে গিয়ে লকডাউনে আটকে পড়েছেন। ফলে তারা পড়েছেন সমস্যায়। তাদের হাতে পয়সা করিও নেই যে তারা প্লেনের টিকিট কেটে বাড়ি ফিরবে। তাই এবার তারা এক ভিডিওর মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন তাদের রাজ্যে ফিরিয়ে আনবার জন্য।

জানা যায়, ভারত এবং বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে বাংলাদেশের খুলনা জেলায় রামপাল নামে এক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র গড়ে তোলার কাজে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে ৩০০ শ্রমিক যোগ দিয়েছিল। পশ্চিমবঙ্গের মালদা, মুর্শিদাবাদ, মেদনীপুর এবং নদীয়া থেকেই এরা বাংলাদেশ গেছিল দুটো পয়সা রোজগারের আশায়। এখানে তারা কেউ ৬ মাস কেউ ৮ মাসের পাসপোর্ট ভিসায় এখানে কাজ করছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশেও শুরু হয়েছে করোনা ভাইরাস। তাই শ্রমিকদের কাজ কর্ম ও বন্ধ হয়ে গেছে। প্রায় দেড় মাস কর্মহীন হয়ে বসে আছে তারা। তাদের ঠিকাদারের কাছে যা পয়সা ছিল ততদিন ঠিকাদার তাদের খাবার খাইয়েছে। এখন তারা একবেলা খেতে পারছে এক বেলা উপোস করে থাকছে।
ভিডিওতে এই শ্রমিকরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে আবেদন করেন- যে দিদি যেন তাদেরকে দেশে ফেরাবার ব্যবস্থা করে। দিদি যেমন যেখানে যেখানে শ্রমিক আছে তাদেরকে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করছে, বাসে বা ট্রেনে যেভাবেই হোক তাদেরও যেন দিদি এভাবেই কোন ব্যবস্থা করে। তাদেরকে বলা হচ্ছে প্লেনে যাবার জন্য কিন্তু প্লেনে গেলে যে চল্লিশ পঞ্চাশ হাজার টাকা খরচা সেই টাকা খরচ করা তাদের পক্ষে সম্ভব নয় বলেও তারা এই ভিডিওতে দিদির কাছে আবেদন করেন। পাশাপাশি দিদির কাছে খুব তাড়াতাড়ি তাদেরকে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে যাবার অনুরোধ ও রাখেন এই ভিডিওতে। তারা সংশয় প্রকাশ করছে যে ১৬ তারিখ বাংলাদেশের লকডাউন উঠে যাবে। এই লকডাউন উঠে গেলে বাংলাদেশের যত শ্রমিক আছে তারা সব বেরিয়ে পড়বে। এখানে কোনো ভালো ডাক্তার নেই, ঔষধ নেই, ভাইরাসের আক্রান্ত বেড়েই চলেছে। তাই তাদের আতঙ্ক আরো বেড়ে গেছে। এর ফলে তারা বাঁচতে ও পারে মরতেও পারে। তাই এই শ্রমিকরা হাতজোড় করে অনুরোধ করেন আমাদেরকে যে কোন বর্ডার দিয়ে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করুন। প্লেনের টিকিটের ভাড়া বা জাহাজের ভাড়া দেওয়ার ক্ষমতা আমাদের নেই। আমাদের যদি বেনাপোল বর্ডার খুলে দেন তাহলেও আমরা ভিক্ষা করে হলো বাড়ি পৌঁছাতে পারবো, যদি গেদে বর্ডার খুলে দেন তাহলে আমরা যেতে পারবো কিন্তু দিদি আমাদের এয়ারপোর্ট যাবার ক্ষমতা নেই। তাই দিদি আমরা হাতজোড় করে আপনার কাছে অনুরোধ করছি আমরা শ্রমিক শ্রেণীর মানুষ পেটের দায়ে এসেছি কাজের জন্য, না খেয়ে রয়েছি আমাদের বাঁচান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

আমফানের টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে বিক্ষোভ ,শান্তিপুরের তিনটি পঞ্চায়েতের প্রধানের পদত্যাগের দাবিতে পোস্টার পরল

স্নেহাশীষ মুখার্জি, নদীয়া, ৪ জুন: আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া নিয়ে দুর্নীতি করছে পঞ্চায়েত মেম্বার, এই অভিযোগ তুলে বৃহস্পতিবার নদিয়ার শান্তিপুরের বেলঘড়িয়া ১...

মার সঙ্গে প্রতিবেশীদের ঝগড়া থামাতে গিয়ে শ্লীলতাহানীর শিকার মেয়ে

স্নেহাশীষ মুখার্জি, নদীয়া, ৪ জুন: ঝগড়া থামাতে গিয়ে শ্লীলতাহানীর শিকার হল মেয়ে। অভিযোগ তাঁকে শ্লীলতাহানি করেছে প্রতিবেশী যুবকরা। এই ঘটনায় ৬ জনের...

গ্ৰাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান করোনা-য় আক্রান্ত

অভিজিৎ হাজরা, হাওড়া : হাওড়া জেলার আমতা ২ নং ব্লকের জয়পুর থানার খালনা গ্ৰামপঞ্চায়েতের উপপ্রধান করোনা-য় আক্রান্ত।উপপ্রধানের পরিবার...

মে মাসে শুধু কোলকাতা থেকে ১১০ টন লিচু ও ৬০ টন মাছের ডিমপোনা পরিবহন করেছে স্পাইসজেট

হীরক মুখোপাধ্যায় (৪ জুন '২০):- এই বছর মে মাসে দমদম বিমানবন্দর থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ১১০ টন লিচু ও ৬০ টন মাছের...