হাঁটু প্রতিস্থাপনের নতুন দিশা দেখাচ্ছে এপোলো হসপিটাল চেন্নাই

কলকাতা সু-স্বাস্থ্য

 

হীরক মুখোপাধ্যায় (২৪ নভেম্বর ‘১৮):- বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগান্তকারী আবিষ্কার ও অগ্রগতির সুবিধা নিয়ে এপোলো হসপিটাল চেন্নাই এখন সম্পূর্ণ হাঁটু প্রতিস্থাপনের বদলে আংশিক হাঁটু প্রতিস্থাপন করেই রোগীদের সুস্থ করে দিচ্ছে।

আজ এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-এর তরফে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে জানানো হয়েছে, “এই শল্য চিকিৎসায় একদিকে যেমন স্বল্প রক্তপাত হয়, অন্যদিকে হয় কম যন্ত্রণা। রোগী যেমন তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে যায়, তেমনি দ্রুত স্বাভাবিক জীবন ফিরে পায়।”

এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-এর তরফ থেকে আরো জানানো হয়েছে, “দেশের মধ্যে এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-ই সর্বপ্রথম এই শল্য চিকিৎসা শুরু করেছে। গত দেড় বছর ধরে এপোলো হসপিটাল চেন্নাই এই ধরনের শল্য চিকিৎসা করে আসছে। সম্প্রতি এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-এর কোলকাতা শাখাতেও এই ধরনের শল্য চিকিৎসা শুরু হয়েছে।”

আজ কোলকাতায় এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-এর তরফে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে অংশ নিয়ে হসপিটালের সিনিয়র কনসালটেন্ট, অর্থোপেডিক সার্জন তথা জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট স্পেশিয়ালিস্ট ডাঃ মদনমোহন রেড্ডী বলেন,”মূলতঃ যাঁরা অসটিওআর্থারিটিস-এর রোগী তাঁদের ওপরেই এই ইউনিকণ্ডাইলার পার্টিয়াল নি রিপ্লেসমেন্ট নামক শল্য চিকিৎসা সম্ভব। ৮৯ বছর পর্যন্ত রোগীদের এই শল্য চিকিৎসা করা সম্ভব। একবার এই শল্য চিকিৎসা হলে রোগী ৩১ বছর পর্যন্ত সুস্থ থাকতে পারবেন। সম্পূর্ণ হাঁটু প্রতিস্থাপনের জন্য যে শল্য চিকিৎসা হয় তার থেকে আটগুণ কম সময়ে এই শল্য চিকিৎসা করা যায়।”

এই ধরনের শল্য চিকিৎসার বিশেষ গুণ সম্পর্কে ধারণা দিতে গিয়ে ডাঃ রেড্ডী আরো বলেন, ” সম্পূর্ণ হাঁটু প্রতিস্থাপন করলেও দেখা যায় রোগীদের সিঁড়ি চড়তে বা খেলাধুলা করতে চূড়ান্ত অসুবিধা হয়, কিন্তু এই পদ্ধতির মাধ্যমে শল্য চিকিৎসা করলে রোগী খুব তাড়াতাড়ি তাঁর স্বাভাবিক কর্মজীবনে প্রবেশ করতে পারেন।”

আজ এপোলো হসপিটাল চেন্নাই-এর কোলকাতা শাখার রিজিওনাল ইনচার্জ ডাঃ নারায়ণ মিত্র-র পাশে বসে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে ডাঃ রেড্ডী বলেন, “মাত্র ৪৫ মিনিটের মধ্যে এই শল্য চিকিৎসা করে ফেলা সম্ভব। রোগীকেও ২৪ ঘন্টার মধ্যে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে এই চিকিৎসার খরচ ২ লাখ ৫৪ হাজার টাকা।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *