শর্ট ফিল্ম হিট হওয়ায় সাকসেস পার্টী দিলেন অর্জুন ভট্টাচার্য

বিনোদন

 

হীরক মুখোপাধ্যায় (৮ নভেম্বর ‘১৮):- অল্প সময়ের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলেছে পরিচালক অর্জুন ভট্টাচার্য (পিকন) পরিচালিত স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র ‘নষ্ট দীঘির পদ্ম’, সেই সফলতাকে পাথেয় করেই ‘সাকসেস পার্টী’ দিলেন পরিচালক অর্জুন ভট্টাচার্য।

কালীপুজোর ঠিক প্রাক্কালে ৫ নভেম্বর এই পার্টী-তে উপস্থিত থেকে অর্জুন জানান, “এ বছর ২২ সেপ্টেম্বর ইউটিউবে রিলিজ করেছিলাম ‘নষ্ট দীঘির পদ্ম’। মুক্তি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্বল্প দৈর্ঘ্যের এই কাহিনীচিত্র চর্চার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠে।
চলচ্চিত্র বোদ্ধা সমালোচকদের একাংশ যেমন একদিকে এর তীব্র সমালোচনা করেছেন, তেমনই অন্য অংশ যথেষ্ট প্রশংসাও করেছেন।
তবে সমাজের যে অংশের দিকে আমি আলোকপাত করতে চেয়েছি, তা যে যথাযথ ও সময়োপযোগী হয়েছে তা প্রত্যেকেই একযোগে স্বীকারও করে নিয়েছেন।
একজন পরিচালক রূপে এটাই আমার বড়ো পাওনা, আর এই কারণেই আজকের পার্টী।”

‘কলকাতা স্কুল অফ ড্রামা’-য় আয়োজিত এই পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা যুধাজিৎ ব্যানার্জী, অভিনেত্রী মৌ বৈদ্য, প্রযোজক অশোক সুরানা, দক্ষিণী অভিনেতা মাণি, প্রখ্যাত তবলা বাদক পণ্ডিত মল্লার ঘোষ, চিত্রশিল্পী সুব্রত গঙ্গোপাধ্যায়, অভিনেতা তথা পরিচালক নারায়ণ রায়, প্রসিদ্ধ ব্যাবসায়ী আজম মিয়ানুর সহ ‘নষ্ট দীঘির পদ্ম’-র গোটা ইউনিট।

‘জলসা এন্টারটেনমেন্ট এণ্ড ফাইন আর্টস’ প্রযোজিত স্বল্প দৈর্ঘ্যের বাংলা চলচ্চিত্র ‘নষ্ট দীঘির পদ্ম’ মূলতঃ ৮মিনিট ২০ সেকেণ্ডের ছবি।

এই ছবির ঘটনা অনুযায়ী, অভিনেত্রী হওয়ার ‘স্বপ্ন’ নিয়ে একসময় কোলকাতার চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করে পদ্ম (টুম্পা নায়েক)।
কিন্তু কিছুদিন পরে সে বেশ বুঝতে পারে, হাজার যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও এই জগতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে গেলে; পরিচালক প্রযোজকদের অন্যায় আব্দারের কাছে নতিস্বীকার করতেই হবে, নইলে প্রতিষ্ঠা পাওয়া তো দূরের কথা সামান্য সুযোগটুকু পাওয়া যাবেনা।

বারবার অডিশন দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে যায় পদ্ম। কিন্তু প্রতিভার বদলে অডিশন চলে শুধুমাত্র তার শরীরের। প্রতিনিয়ত তাকে করতে হয় কম্প্রোমাইজ। মাত্রাতিরিক্ত যৌন শোষণে রক্তাক্ত হয়ে পড়লেও হাল ছাড়ে না পদ্ম। মনের মধ্যে জাগিয়ে রাখে একটা ব্রেক পাওয়ার স্বপ্ন।

এদিকে জীবনের এই চরম গ্লানি-কে লুকিয়ে রেখে তার সামান্যতম রোজগার থেকেও পরিবারকে সে নিয়মিতভাবে টাকা পাঠাতে থাকে।
আর অন্যদিকে একটু একটু করে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে শরীরী আপোষে ।
হার না মেনে এইভাবেই চলতে থাকে পদ্মের জীবন যুদ্ধ। স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার লড়াই।

সাকসেস পার্টীতে উপস্থিত থেকে অভিনেতা যুধাজিৎ ব্যানার্জি জানান, “প্রত্যেকের কাজ সত্যি প্রশংসনীয়। আমি আশা করব আগামীদিনে এঁনারা আরো ভালো ভালো সিনেমা দর্শকদের উপহার দেবেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *