বেহালার বুকে সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার নামে জালিয়াতি

কলকাতা

প্রলয় সামন্ত,বেহালা,(১৮মে১৯): সিনেমায় অভিনয় করার ইচ্ছে কম বেশি অনেকেরই রয়েছে।তাই কেউ টাকা দিয়ে সুযোগ পায় আবার কেউ পায় না।কিন্তু সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার নামে প্রতারণার জালিয়াতি চক্র জোরকদমে চলছে কলকাতা সহ বিভিন্ন জায়গায়।অভিযোগ সিনেমা জগতে মিটু মুভমেন্ট এই মুহূর্তে যেভাবে আলোড়ন ফেলেছে তার মধ্যেও কিছু সংস্থা এখনও আছে যারা নতুনদের দিয়ে নোংরা খেলা চালিয়েই যাচ্ছে। অভিযোগ ‘ক্যারিয়ার ফোকাস প্রোডাকশন হাউস’ এরকমই এক সংস্থার নাম প্রকাশ্যে এলো।যারা বহু দিন ধরে নতুন ছেলে মেয়েদের জীবন নিয়ে খেলার পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ টাকা নিচ্ছে নাম করা চ্যানাল এ অভিনয় করার সুযোগ দেবে বলে।

এই ঘটনা কলকাতা শহরের বেহালা মুচিপাড়া এলাকার।সংস্থাটির ‘ক্যারিয়ার ফোকাস প্রোডাকশন হাউস’ নামে পরিচিত।
জানা যায় এই সংস্থার কর্ণধার স্বপন চৌধুরী ওরফে রবি কয়াল এবং তার সহকর্মী শোভা বারিক তাকে এই কাজে সহযোগিতা করতেন।
স্থানীয় সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন ধরে তারা বহু ছেলেমেয়েকে ঠকিয়ে তাদের থেকে টাকা নেয়। আর টাকা না থাকলে তাদের নোংরা কুপ্রস্তাব দিয়ে তাদের হেনস্তা করে চলেছে’।
এই সংস্থায় ছেলে মেয়েরা তাদের স্বপ্ন তৈরি করতে এসে প্রতারিত হয়ে চোখে জল নিয়ে খালি হাতে ফিরতে হয় বলেই অভিযোগ।যারা প্রতারিত হয়েছে তারা সংবাদমাধ্যমকে সরাসরি সব জানায় সংস্থার ভেতরে জালিয়াতির কথা।তারা বলেন,’আমাদের বিভিন্ন নামী শিল্পীর সঙ্গে সিনেমাতে সুযোগ দেবে বলে বহু টাকা নিয়েছে। কিন্তু তারপর আমরা লক্ষ্য করলাম প্রত্যেককে বিভিন্ন নোংরা উপায়ে ঠকাচ্ছে এবং সব মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেওয়া হচ্ছে’।
এখানেই শেষ নয় তাদের আরও অভিযোগ , ‘যে চুক্তিপত্র তাদের দেওয়া হয়েছিল তাতে স্পষ্ট উল্লেখ ছিল বিভিন্ন নাম করা চ্যানেলের বহু কাজ করার সুযোগ। সাথে এ ও উল্লেখ ছিল কেউ যদি সিনেমা কিংবা সিরিয়াল ছেড়ে মাঝপথে পালিয়ে যায় তাকে ২লক্ষ টাকা জরিমানা হিসেবে দিতে হবে।কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় এই জালিয়াতি সংস্থা কত টাকা নিচ্ছে সেসব কিছুই উল্লেখ ছিল না চুক্তিপত্রে বলেই অভিযোগ। অবশ্য এই বিষয়ে প্রতারিত ছেলেমেয়েরা ইতিমধ্যেই বেহালা থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে।
জানা গেছে এই স্বপন চৌধুরী এই ভাবে জালিয়াতি করছে বহুদিন থেকে।শুধু তাই নয় অনেকের বাড়িতে ফোন করে হুমকিও দিয়েছে বলেও অভিযোগ।
এব্যাপারে এই সংস্থার কর্ণধার স্বপন চৌধুরীর সাথে আমরা ফোনে যোগাযোগ করি।তিনি জানান এই সব মিথ্যা।আমি এসব কিছু করিনি বলেই বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি ।এর সাথে তিনি বিশ্ব বাংলা নিউজের প্রতিনিধিকে বলেন,’ খবরটা করবেন না।তার বিনিময়ে যা বলবেন আমি রাজি’।
সত্য সংবাদ সম্প্রচার করা আমাদের কর্তব্য।আমরা সেই দায়িত্ব পালন করছি এবং করে যাবো।
শুধু এই সংস্থা নয় কলকাতা শহরে ছেয়ে গেছে জালিয়াতি চক্র।
অবশ্য এই বিষয়ে প্রতারিত ছেলেমেয়েদের পুলিশ সহযোগীতা করবে বলে আশ্বস্ত করেছেন। এর পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসন চেষ্টা করবেন দ্রুত যাতে প্রতারিত ছেলে মেয়েদের তাদের প্রাপ্য টাকা ফেরত পায়।
তাই সময় থাকতে সচেতন হন এবং অপরকে সচেতন করুন।এরকম ঘটনা যদি দেখতে পান তৎক্ষণাৎ স্থানীয় থানায় অভিযোগ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *