Categories: জেলা

আন্তরিকতার কোন ত্রুটি হয়নি বলেই হয়ত মা আসছেন

স্নেহাশিস মুখার্জি , নদীয়া(১২ অক্টোবর) : প্রায় ১২০০ বছর আগে বিহারের গয়ার যদুয়াতে আদিপুরুষ স্বর্গীয় পীতাম্বর চট্টোপাধ্যায়ের জমিদারী ছিল | সেই জমিদারী বংশেরই আদিপুরুষের বসতবাটি ছিল অবিভক্ত বাংলার নদীয়া জেলার শান্তিপুরে | যা বর্তমানে তর্কবাগীশ লেনের জজ বাড়ী নামে খ্যাত | স্বর্গীয় পীতাম্বর চট্টোপাধ্যায় , গিরীশ চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় , মহিমারঞ্জন চট্টোপাধ্যায় , হাজারিলাল চট্টোপাধ্যায়ের গত হওয়ার পর বর্তমানে তাঁর বংশধর সলীল কুমার চট্টোপাধ্যয় এবং তাঁর সুযোগ্য উত্তরসূরিরা এখনও সেই ১২০০ বছরের স্মৃতিবিজড়িত শক্তির আরাধ্য দেবী মা দূর্গার একনিষ্ঠ ভাবে পূজার্চনা করে আসছেন | এই মূহুর্তে সলীল কুমার চট্টোপাধ্যায় পূজোর দায়িত্বে থাকলেও বাড়ীর অন্যান্যরাও তাঁকে যঠেষ্ট পরিমাণে সাহায্য করেন | বনেদী জমিদার বাড়ীর রীতি অনুযায়ী বংশ পরম্পরায় বাড়ীর লোকেরাই এই বাড়ীর পূজোর পৌরোহিত্য করেন | আজও সেই রেওয়াজ চলে আসছে | সলীল কুমার চট্টোপাধ্যায়ের ভাই দীনেশ কুমার চট্টোপাধ্যায় এখন নিষ্ঠার সঙ্গে এই পৌরোহিত্যের দায়িত্ব পালন করে আসছেন | যদিও অসীম কুমার চট্টোপাধ্যায় এর আগে এই গুরু দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন | তাঁরই ভাইপো বর্তমান পৌরহিত্যের দায়িত্বে দীনেশ কুমার চট্টোপাধ্যায় | তিনি আমাদের ওয়েব মাধ্যমকে জানান বহু বছর আগের এই পূজো | দেবীপুরান মতে বা কালিকাপুরান মতে এই পূজো হয়ে আসছে | তিন দিন ধরে এই ভোগ হয় |সপ্তমীর দিন নিরামিষ , অষ্টমীর দিন মাছ , নবমীর দিন কচুর শাক সহ সতেরো আঠেরো রকমের ভোগ আর দশমীর দিন পান্তা ভাত সহ সমস্ত রকম বাসি রান্না ভোগ দেওয়া হয় | জমিদার আমলে বড় বড় নৌকায় মায়ের ভোগের সরঞ্জাম আসতো | কাটোয়া থেকে মায়ের সাজ আসতো | মায়ের পাটের নিচে একটা পঞ্চ মুন্ডির আসন আছে | যা সম্পূর্ণ মাটির তৈরি | যা আজও মার্বেল বা অন্য কোনওভাবে বাঁধানো সম্ভব হয়নি | অতীতের ইতিহাস সাক্ষী যে জমিদার বংশের অনেকেই এই বেদীটিকে বাঁধানোর কাজে উৎসাহিত হয়ে শ্রমিকদের নিযুক্ত করলেও তারা সবাই কোন এক তৃতীয় শক্তির ভয়ে ভিত হয়ে পলায়ণ করেছিল | তারপর থেকেই প্রধান বেদিটি আজও গোবর আর মাটি দিয়ে নির্মাণ করা হয় | শোনা যায় এই বেদির তলায় অনেক সম্পদ আছে | বাড়ীর অনেক পূর্বপুরুষ এই সম্পদ তুলতে গিয়ে প্রাণ ত্যাগ করেন | তবে তাঁর গলায় আক্ষেপ যে আগে পূজোর আড়ম্বর প্রচুর ছিল , কিন্তু ভবিষ্যতের সঙ্গে আড়ম্বর কমেছে | কিন্তু আন্তরিকতার কোন ত্রুটি হয়নি , আর তাই বাড়ীর লোকেদের এই আন্তরিকতার টানেই হয়ত মা আসছেন বলে তাঁদের বিশ্বাস | বাড়ীর আর এক সদস্যা রুম্পা ( সঞ্চারী ) চ্যাটার্জীর গলাতেও সেই আক্ষেপের সুর ধরা পরে | তাঁর কথায় পূজোর গুরুত্বটা কোথাও না কোথাও যেন হারিয়ে যাচ্ছে | কর্মসূত্রে যাঁরা বিদেশে আছেন তাঁরা হয়ত সবাই আসতে পারছেন না | পূজোয় একসাথে সবাই মিলে যে আনন্দ করার আমেজ সেটা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে | আগে জমিদারী আমলে ১৮ টা মহিষ ১০৮ টা পাঠা বলি হত , সেই বলির রেওয়াজ টা এখন অর্থনৈতিক কারণে তাঁরা চালিয়ে উঠতে পারছেন না | তবে মহিষ বলি পাঁঠা বলি এই পূজোতে বন্ধ হলেও কুমড়ো বলি দেওয়া হয় | তবে অর্থনৈতিক কারণে পরিমাণে কমে গেলেও কালী পূজোতে এই বলি প্রথা এখনও রয়ে গেছে | কালী ঠাকুর যখন পাটে ওঠানো হয় তখন একটা বলি হয় | তারপর সময় বিশেষে বলি চলতে থাকে | সেই বলির মাংসই তাঁরা কালী পূজোতে ভোগ হিসাবে ব্যবহার করেন | এছারাও জমিদারী আমলে বাড়ীটা ফানুস বাতিতে সাজান হত এখন আর সেটা দেখা যায় না | কিন্তু তিনিও তাঁর কাকা দীনেশ কুমার চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সহমত প্রকাশ করে বলেন যে জমিদারী আমলে আড়ম্বর প্রচুর ছিল , কিন্তু ভবিষ্যতের সঙ্গে আড়ম্বর কমলেও আন্তরিকতার কোন ত্রুটি হয়নি , আর তাই তো শক্তির আরাধ্যা মা দূর্গা দুর্গতিনাশিনী প্রতিবারের ন্যায় এবারেও
তাঁদের বাড়ীতে সবার দুঃখ বিনাশ করতে ছুটে এসেছেন | আজকের দিনে দাঁড়িয়ে এটা কি কম বড় পাওনা ?

Share

Recent Posts

প্রেমিকাকে মোবাইল ফোনে ডেকে মারধর প্রেমিকের

শুভঙ্কর অধিকারী, বসিরহাট(১৭ অক্টোবর): বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ থানার পূর্ব খেজুরবাড়িয়া গ্রামের ঘটনা। হিঙ্গলগঞ্জ মহা বিদ্যালয়ের এর প্রথম বর্ষের ছাত্রী বয়স… Read More

20 mins ago

ত্রিকোণ প্রেমের জেরে খুন নাকি এর পেছনে রয়েছে অন্য কোন কারণ তদন্তে পুলিশ

শুভঙ্কর অধিকারী, নিমতা(১৭ অক্টোবর): নবমীর শেষ রাতে নিমতার বঙ্কিম মোড়ে গাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল দমদমের বাসিন্দা দেবাঞ্জন দাসের দেহ। ওই… Read More

23 mins ago

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশে আস্থা নেই খোদ রাজ্যপালের তাই পাঁচজন কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা কর্মী পাঠাচ্ছে কেন্দ্র

হীরক মুখোপাধ্যায় (১৭ অক্টোবর '১৯):-পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশে আস্থা নেই খোদ রাজ্যপালের তাই রাজ্যপালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে বিশেষ শিক্ষিত পাঁচজন… Read More

27 mins ago

বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে শ্রীমদ্ভগবদগীতার বাস্তবতা (দ্বিতীয় পর্ব)

অর্পিতা সিনহা,বাঁকুড়া(১৫অক্টোবর): তৃতীয় অধ্যায়,কর্মযোগ : অর্জুন বললেন হে পরমেশ্বর কর্ম অপেক্ষা জ্ঞানই যদি শ্রেষ্ঠ হয় তাহলে মানুষ কেন এত হিংসা… Read More

2 hours ago

জাতীয় পতাকা উল্টোভাবে উত্তোলন করে রাজ্য সরকারের মুখ পোড়াল ডিরেক্টরেট অব কমার্সিয়াল ট্যাক্সেস

হীরক মুখোপাধ্যায় (১৬ অক্টোবর '১৯):- আজ সকালে ভারতের জাতীয় পতাকা উল্টোভাবে উত্তোলন করে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে সীমাহীন লজ্জার সামনে ফেলল সল্টলেকে… Read More

1 day ago

বর্তমানে যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শ্রীমদ্ভগবদগীতার বাস্তবতা

অর্পিতা সিনহা,বাঁকুড়া(১৫অক্টোবর ): শ্রীমদ্ভগবদগীতা হিন্দুদের প্রাচীন ধর্মগ্রন্থ। গীতা ৭০০টি শ্লোক ও১৮ টি অধ্যায় নিয়ে রচিত। শ্রীমদ্ভগবদগীতা ভগবান শ্রীকৃষ্ণের মুখ নিঃসৃত… Read More

1 day ago